Home / লাইফস্টাইল / কা’পড় না’ড়তে গিয়ে ছেলের প্যা’ন্টের পকেট থেকে ক;ন;ড;ম পেলেন বাবা, তারপর…ঘ’টনা ভাইরাল

কা’পড় না’ড়তে গিয়ে ছেলের প্যা’ন্টের পকেট থেকে ক;ন;ড;ম পেলেন বাবা, তারপর…ঘ’টনা ভাইরাল

ছে’লের প্যান্টের পকেট থেকে ক;ন্ডো;ম পেলেন বাবা। তারপর ছে’লের স’ঙ্গে যে কাণ্ড ঘটিয়েছেন বাবা তা জা’নাজানি হতেই সোশ্যাল মি’ডিয়ায় ভাইরাল। স্বয়ং ছেলে নিজেই সেই ঘ’টনা শেয়ার করেছেন টু’ইটারে।

ঘ’টনাটি ঘটেছে বেঙ্গালুরুর এক চা’কুরিজীবী ছেলের স’ঙ্গে। যার নাম হর্ষ মিত্তল। পেশায় তিনি ই’ঞ্জিনিয়ার। বাড়ি থেকে বে’রোনোর সময় মায়ের কাছে তার প্যা’ন্ট দিয়ে যান। প্যা’ন্টটি কেচে রাখার জন্য মাকে অ’নুরোধ করেন সে।

এরপর কা’জের জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। মা প্যান্টে কেচে দে’ওয়ার পর তা মেলেতে যান বাবা। ছে’লের প্যান্ট মেলার সময় বাবা বুঝতে পারেন , ছেলের প্যা’ন্টের পকে’টে কিছু একটা রয়েছে। যা ভিজে গি’য়েছে।

ত’ড়িঘড়ি তা বের করে দেখেন ভিন্ন কো’ম্পানির পাঁচ’টি ক;ন্টো;ম। যা দেখে চক্ষু ছা’নাবড়া হয়ে যায় বাবার। এরপর যথা স’ময়ে ফিরে আসেন ছেলে। ঘরে ঢু’কতেই দেখেন বাবা মায়ের মুখ গ’ম্ভীর।

ঘ’টনাটি ঠাহর করার আগে মা হ’র্ষকে বলেন, ‘বাবা তোমার প্যা’ন্টের পকেট থেকে কিছু একটা পে’য়েছেন”। ছেলের তখন টনক নড়ে। দৌড়ে যায় বা’বার কাছে। বাবা ছেলেকে বলেন, “ওগুলো ভি’জে গি’য়েছিল।

রোদে শু’কোতে দিয়েছি। যাওয়ার সময় নিয়ে যেও”। এরপর তিনি ছে’লেকে বলেন, “এখন বু’ঝছি কেন তুমি বিয়ে করতে চাইছ না। ” কিন্তু এই ঘ’টনায় মা বে’জায় রে’গে যান।

মা জি’জ্ঞাসা করেন ”কে?” বাবা তার উ’ত্তরে বলেন, ”কে নয়, জি’জ্ঞসা করো কে কে?” এরপর হ’র্ষ জল খেতে থাকে। ভাই ব’লেন, ”এত জল খা’চ্ছিস কেন দাদা”। বাবা উত্তর দেন, “ওর অ’নেক তৃষ্ণা”।

সম্প্রতি এই ঘ’টনা সো’শ্যাল মিডিয়ার ময়দানে ভাইরাল। বা’বার ইতিবাচক ভাবনাচিন্তা ও বন্ধুসুলভ আ’চরণের প্রশংসা করেছে নেটিজেনদের একাংশ।

সমস্যা কি তাইলে বোরখায়, প্রশ্ন ফারুকীর

জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে বেশ সক্রিয়। সমসাময়িক বি’ষয় নিয়ে প্রায়ই নিজেস্ব মত প্রকাশ করে থাকেন এই মাধ্যমে।

সম্প্রতি এই নির্মাতা ফেসবুকে লিখেছেন, আসল সমস্যাটা কোথায়? বোরখায় না আবহমান কালের বাঙালীয়ানায়? এবার প্রশ্ন “আবহমানকালের বাঙালীয়ানা” কোনটা? ব্যাপারটা কি এমন যেটা এতকাল ধরে সাধারণভাবে বাংলাদেশে চলে আসছে?

তো বাংলাদেশে তো এক সময় কালচার ছিল, মেয়েরা সন্ধ্যার পরে ঘরের বাইরে যাবে না! মেয়েদের পনেরো বছর হইলে বিয়ে দিয়ে স্বা’মীর ঘরে পাঠাইয়া দিতে হবে! মে’য়েরা চাকরী করতে পারবে না!

ফেসবুকে তিনি আরও লিখেছেন, তারও আগে ছিল সতীদাহ প্রথা! আমরা তো সেই সব কালচাররে ঝাড়ু পিটা কইরা তাড়াইয়া দিছি। নাকি?

তার মানে আবহমান কালের বাঙালীয়ানাটা ধইরা না রাখলেও আমাদের মধ্যবিত্ত কালচারাল পু’লিশদের সমস্যা নাই! সমস্যা কি তাইলে বোরখায়? কারণ এটা মধ্যপ্রাচ্য থেকে আসছে? তো আমরা কি বাইরের কিছু নিবো না?

তাইলে তো সালওয়ার কামিজ, প্যান্ট-শার্ট, শর্ট এগুলাও আমাদের বাতিল করতে হয়! নাকি? এক সময় এই বাকোয়াজ পাহারাদারগুলা রক-পপ মিউজিকরে অপসংস্কৃতি বইলা চুঙ্গা ফুঁকাইছিলো দিনের পর দিন!

আবহমান শুনলেই তাই আমি চশমার ফাঁক দিয়া একটু ভালো কইরা তাকাইয়া দেখি! আমার অবশ্য ব্যক্তিগতভাবে কোনোটাতেই সমস্যা নাই! বোরখাতেও নাই, বিকিনিতেও নাই! যতক্ষণ পর্যন্ত জবরদস্তি না হচ্ছে!

সবশেষে এই নির্মাতা জানান, আগেও বলছি, যে হুজুর ফতোয়া দেয় না’রী প্যান্ট টি-শার্ট পরতে পারবে না, হেন করতে পারবে না, তেন করতে পারবে না।

তার স’ঙ্গে আমাদের কিছু লিবারেলদের খুব পার্থক্য পাই না। যখন তাদের বোরখা নিয়া ফতোয়া শুনি! তখন আমার ইনাদেরকে একেকজন সেক্যুলার আমির হামজা মনে হয়!

আমাদের পরের প্রজ’ন্ম এইসব পেটি এবং ফালতু জ্ঞানালাপ থেকে আশা করি দূরে থাকবে। তাদের মন চাইলে শর্ট পইরা ঘুরবে, মন চাইলে আপাদমস্তক ঢাইকা ঘুরবে! তার গা ঢাকা বা খোলা রাখার কারণে তাকে আমরা আলাদা করে জাজ করবো না, বৈষম্য করবো না- এইটুকু আলো আমাদের দাও গো সাঁই।

About admin

Check Also

আবু ত্ব-হার মায়ের কাছে ফোন দিয়ে মুক্তিপণ দাবি

ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ১০ জুন থেকে নিখোঁজ। সঙ্গে রয়েছেন তার সফরসঙ্গী আব্দুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *