Home / লাইফস্টাইল / বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না রেজাউল শিকদারের

বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না রেজাউল শিকদারের

এই ঘ’টনাটি ২০২০ সালের ঘ’টনা বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার মাবধপুরের রেজাউল শিকদারের। লেবাননের বৈরুতে ভ’য়াবহ রাসায়নিক বি’স্ফোরণে প্রা’ণ হা’রান তিনি। মৃ’ত্যুর সংবাদ শোনার পর তার গ্রামের বাড়িতে চলছে শো’কের মাতম। পরিবারের আহাজারিতে আকাশ ভা’রী হয়ে উঠেছে।

দীর্ঘ ৯ বছর আগে ভাগ্য পরিবর্তনে রেজাউল লেবাননে পাড়ি জমান। চলতি বছরের মা’র্চে দেশে ফিরে বিয়ে করার কথা ছিল তার। করো’নায় পিছিয়েছে যায় দেশে ফেরা। তিন মাস আগে মোবাইল ফোনে আকদ হয়েছিল তার।

রেজাউলের বাড়ি আসবে, বিয়ে করবে এ কথা বলে কেঁদে ফিরছেন তার মা-বাবা, ভাই বোনেরা। বাড়ি আসবে বিয়ে করবে সেজন্য রেজাউল সু-সজ্জিত একটি বাড়িও তৈরি করেছিলেন। রেজাউলের এমন মৃ’ত্যুতে শো’কাহত গ্রামবাসীও। মৃ’ত্যুর সংবাদ জানার পর থেকে শতশত মানুষ ভিড় করছেন বাড়িটিতে।

তারা দুই ভাই, দুই বোন। ছোট ভাই মাহবুব শিকদারও লেবাননে থাকেন। মাহবুবের কর্মস্থল দূরে থাকায় সে সুস্থ আছেন বলে জানা গেছে। পরিবারের আয়ের উৎস তারা এ দুই ভাই।

লেবাননে পেট্রলপাম্পে কাজ করত সে। বি’স্ফোরণ ঘটার কাছেই ছিল পাম্পটি। পরিবারের শেষ চাওয়া রেজাউলের ম’রদে’হ দ্রু’ত দেশে আনা। তারজন্য স’রকারের সহযোগিতাও চেয়েছে পরিবারটি।

বিমানবন্দরে শি’শুর মুখে ফিডার, পালালেন সৌদিফেরত মা

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি ট্রলিতে শুয়ে ফিডারে দু’ধ খাচ্ছিল আট মাসের এক শি’শু। কিন্তু তার আশপাশে কারো উপস্থিতি নেই।

এমনকি তার মায়ের কোনো খোঁজ মেলেনি। অবশেষে শি’শুটিকে উ’দ্ধার করেছে বিমানবন্দরে কর্মরত আর্মড পু’লিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

শুক্রবার সকাল ৯টায় বিমানবন্দরের অ্যারাইভাল বেল্টের পাশে থেকে শি’শুটিকে উ’দ্ধার করা হয়।

এপিবিএন সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টায় সৌদি এয়ারলাইনসের একটি উড়োজাহাজে ওই শি’শুসহ তার মা শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছান।

শি’শুটিকে নিয়ে সারারাত মা অ্যারাইভাল বেল্টের পাশে বসেছিলেন। কিন্তু সকাল থেকে মায়ের কোনো উপস্থিতি দেখা যায়নি। পরে শি’শুটিকে সকাল ৯টার দিকে উ’দ্ধার করে এপিবিএন সদস্যরা।

এপিবিএনের অতিরিক্ত পু’লিশ সুপার আলমগীর হোসেন (গণমাধ্যম) বলেন, শি’শুটির মা সারারাত কেঁদে অন্য এক না’রীকে বলেছিলেন- তিনি সৌদি আরবে একজনকে বিয়ে করেছিলেন। এখন তার স্বা’মী বিয়ে অস্বীকার করছে।

তিনি আরো বলেন, হয়তো লজ্জার ভ’য়ে শি’শুটিকে রেখে মা কোথাও চলে গেছেন। এখন ভিডিও ফুটেজ দেখে মাকে শনাক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। মাকে খুঁজে না পেলে শি’শুটিকে কোনো আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠানো হবে।

About admin

Check Also

আবু ত্ব-হার মায়ের কাছে ফোন দিয়ে মুক্তিপণ দাবি

ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ১০ জুন থেকে নিখোঁজ। সঙ্গে রয়েছেন তার সফরসঙ্গী আব্দুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *