Home / লাইফস্টাইল / স্বা’মীর প্রতি ভালোবাসা দেখাতে গিয়ে মাকে শেষ করে দিলেন মে’য়ে

স্বা’মীর প্রতি ভালোবাসা দেখাতে গিয়ে মাকে শেষ করে দিলেন মে’য়ে

স্বা’মীকে মোটরসাইকেল কিনে দিতে রাজি না হওয়ায় নিজের মাকে ব্লে’ড দিয়ে শ্বা’সনালী কে’টে হ’ত্যা করেছে এক মে’য়ে।

পু’লিশ অ’ভিযুক্ত ববি খাতুনকে গ্রে’ফতার করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে তাকে নাটোর পু’লিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করে প্রেস ব্রিফিং করে এ ত’থ্য জানান নাটোরের পু’লিশ সুপার লিটন কুমা’র সাহা।

এ সময় পু’লিশ সুপার বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় জে’লার গু’রুদাসপুর উপজে’লার উত্তর নাড়ীবাড়ী এলাকার মো: নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা খাতুনের (৬০) গ’লাকা’টা লা’শ উ’দ্ধার করে পু’লিশ।

এ সময় তার নিজের অ’ষ্টম শ্রেণীতে পড়া ছোট মে’য়ে ববির অ’স্বাভা’বিক আচরণ ও অ’স’ঙ্গতিপূর্ণ কথাবার্তায় সন্দে’হ হয় পু’লিশের। তাকে হেফাজতে নিয়ে জি’জ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে মাকে ব্লে’ড দিয়ে শ্বা’সনালী কে’টে হ’ত্যার কথা স্বীকার করে ববি।

অ’ভিযুক্ত ববি খাতুন পু’লিশকে জানায়, ছয় মাস আগে মালয়েশিয়াতে অবস্থানরত খালাত ভাই রাজবাড়ি জে’লার পাংশা থা’নাধীন হাবাসপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে সোহেল রানার সাথে তার বিয়ে হয়।

মায়ের কাছে স্বা’মীর জন্য একটি মোটরসাইকেল কিনে দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে ব্য’র্থ হওয়ায় মা-মে’য়ের সম্প’র্কের অবনতি ঘটে। সোমবার ‘বিকেল পাঁচটার দিকে মায়ের শয়নকক্ষে ঝ’গড়া ও ধ্বস্তাধ্বস্তির এক পর্যায়ে তাকে ব্লে’ড দিয়ে শ্বা’সনালী কে’টে হ’ত্যা করে ববি।

সেলিনা খাতুনের কাছে থাকা চাবি নিয়ে লকার খুলে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা মূ’ল্যমানের ৯ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ১৬ হাজার ৯৬০ টাকা নিয়ে নিজের হেফাজতে রেখে দেয় ববি খাতুন।

পরে ববি খাতুনের ভ্যানেটি ব্যাগ থেকে ৯ ভরি স্ব’র্ণালংকার ও নগদ ১৬ হাজার ৯৬০ টাকা এবং তাদের ঘরের খাটের নিচ থেকে হ’ত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত র’ক্তমাখা ব্লে’ড উ’দ্ধার করে

পু’লিশ।ময়’নাতদ’ন্তের জন্যে নি’হত সেলিনা খাতুনের লা’শ নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। গু’রুদাসপুর থা’নায় মঙ্গলবার হ’ত্যা মাম’লা দা’য়ের করে অ’ভিযুক্তকে আ’দা’লতে হাজির করার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান পু’লিশ সুপার।

About admin

Check Also

আবু ত্ব-হার মায়ের কাছে ফোন দিয়ে মুক্তিপণ দাবি

ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ১০ জুন থেকে নিখোঁজ। সঙ্গে রয়েছেন তার সফরসঙ্গী আব্দুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *